May 20, 2024 | Monday | 4:31 AM

কামাক্ষা দেবী: প্রেম, কামনা ও শক্তির দেবী

0

মানসিকতা ও আধ্যাত্মিকতার কেন্দ্রবিন্দুতে অবস্থিত কামাক্ষা মন্দির ভারতের আসাম রাজ্যের গুওয়াহাটি শহরের নিকটে অবস্থিত। দেবী কামাক্ষা এই মন্দিরের প্রধান দেবী, যিনি প্রেম, কামনা ও শক্তির প্রতীক হিসেবে পূজিতা হন।কামাক্ষা দেবীর উৎপত্তি সম্পর্কে বিভিন্ন কিংবদন্তি রয়েছে। একটি জনপ্রিয় কিংবদন্তি অনুসারে, দেবী পার্বতী রাগান্বিত হয়ে দেবী কামাক্ষার রূপ ধারণ করেছিলেন যখন শিব তাকে সতী র মৃত্যুর জন্য দায়ী করেছিলেন।আরেকটি কিংবদন্তি অনুসারে, দেবী কামাক্ষা কাম ও ক্ষমা নামক দুই রাক্ষসকে পরাজিত করেছিলেন।কামাক্ষা মন্দির তার অনন্য স্থাপত্য ও ধর্মীয় গুরুত্বের জন্য বিখ্যাত। মন্দিরটি যোনি আকৃতির, যা শক্তির প্রতীক হিসেবে বিবেচিত হয়।প্রতি বছর হাজার হাজার তীর্থযাত্রী ও পর্যটক দেবী কামাক্ষার আশীর্বাদ লাভের জন্য এই মন্দিরে ভিড় জমান।কামাক্ষা দেবী শুধুমাত্র হিন্দুদের জন্যই নয়, বরং সকল ধর্মের মানুষের জন্যই আধ্যাত্মিক প্রেরণার উৎস।মন্দির কর্তৃপক্ষ নিয়মিত ধর্মীয় অনুষ্ঠান ও উৎসব আয়োজন করে থাকে।কামাক্ষা মন্দির ভারতের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শক্তিপীঠ গুলির মধ্যে একটি এবং হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের জন্য একটি পবিত্র তীর্থস্থান।কিন্তু সম্প্রতি, মন্দিরে অসামাজিক কার্যকলাপ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। কিছু তীর্থযাত্রী ও পর্যটক মন্দিরের পরিবেশ নষ্ট করছে বলে অভিযোগ করেছেন। এই সমস্যা সমাধানের জন্য মন্দির কর্তৃপক্ষ কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানিয়েছে। তীর্থযাত্রী ও পর্যটকদের অনুরোধ করা হয়েছে মন্দিরের মর্যাদা রক্ষা করতে এবং পরিবেশ নষ্ট না করতে।কামাক্ষা দেবী প্রেম, কামনা ও শক্তির দেবী হিসেবে পূজিতা হন। কামাক্ষা মন্দির তার অনন্য স্থাপত্য ও ধর্মীয় গুরুত্বের জন্য বিখ্যাত। হাজার হাজার তীর্থযাত্রী প্রতি বছর দেবী কামাক্ষার আশীর্বাদ লাভের জন্য এই মন্দিরে ভিড় জমান। কিন্তু সম্প্রতি মন্দিরে অসামাজিক কার্যকলাপ বৃদ্ধি পেয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এই সমস্যা সমাধানের জন্য মন্দির কর্তৃপক্ষ কঠোর পদক্ষেপ নিয়েছে।

Advertise

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *